Cheap Jerseys China  Jerseys Wholesale 
Warning: Use of undefined constant HTTP_USER_AGENT - assumed 'HTTP_USER_AGENT' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/u204653747/domains/showravhasan.com/public_html/wp-content/themes/twentynineteen/header.php on line 1
বৈষম্য – Showrav Hasan

সমাজে ঘটে যাওয়া অন্যায় গুলোর দায় সবার সমান না, কিছু কিছু অন্যায়ের বেলায় ছেলে হইলেই মাফ ঠিক যেমন আমাদের দেখা একটি অন্যায় যা সেই তখন থেকে এখন পর্যন্ত হয়েই আসছে।সেটা আর কিছু নয় আমাদের খুব পরিচিত একটি শব্দ “ধর্ষন”🧟‍♂।

প্রতিদিন এটার শিকার হচ্ছে হাজারো নারী, এমন কি একটি ছোট নারী শিশু ও রক্ষা পাচ্ছে না এইসব মুখোশ ধারি মানুষ নামের ভয়ংকর পুরুষ গুলোর হাত থেকে। এই অন্যায়ের ৮০% দায় নাকি একটি মেয়ের পোষাক! হায়রে মানুষ জাতি, যাকে বোকা পায় তারে চাইপা ধরে।


আচ্ছা মেনে নিলাম মেয়েদের পোষাক দায়ী।একটা আট বছরের শিশুর কোন পোশাকটা দেখতে খারাপ যার জন্য তাকে এই পরিস্থিতির শিকার হতে হয়? আছে আমাদের কাছে এই প্রশ্নের উত্তর?


একটা মেয়ের বাবা-মা তাকে স্কুল, কলেজে ভর্তি না করিয়ে মাদ্রাসায় ভর্তি করিরে দেয় তাকে কুরআনে হাফিজা বা ইসলামিক জীবন ধারন করার জন্য। আমাদের সমাজে যে হুজুর গুলার প্রতি বিশ্বাস রেখে বাবা-মা রা হেফাজতে থাকবে বলে ভর্তি করিয়ে দিয়ে যায় যদি সেই হুজুর ই একজন ধর্ষক হয় তখন একটা মেয়ে কোথায় পড়াশোনা করবে?
যদি বলি পড়াশোনা না করলেই এটার সমাধান হয়,যদি ঘর বন্দি হয়ে থাকতে হয় তাহলে বলতে বাধ্য হব পৃথিবী এখন যে পর্যায় গিয়ে দাড়িয়েছে একজন মূর্খ প্রতিটা পদে পদে টের পায় তার মূর্খতার অভিশাপ।

একটি শিশু কি ঘর বন্দি হয়ে থাকবে? তার পরিবারের কারো কোলে যাবে না? যখন খুব কাছের মানুষগুলোর দ্বারা এসব কিছু কাজের শিকার হয় তখন বলার কিছুই থাকে না। সত্যি কিছু বলার ভাষা হারিয়ে যায়। এর কি শেষ নাই? এভাবেই চলতে থাকবে?
বাংলাদেশের আইন ব্যাবস্থা এমন যে নতুন কোন ঘটনার সৃস্টি হলে অতিত/পুরাতন ঘটনাটা ধরা ছোঁয়ার বাহিরে চলে যায়।


যতদিন না মানুষের বিবেক জাগ্রত হবে, এর শেষ হবে না।পোশাক টা একটি নিছক ই স্বস্তা অজুহাত। একজন নারী তাই শুধু অন্যায় সহ্য করে ই যাবে আর একজন মহা পুরুষ অন্যায় করে যাবে। এটার কি কোনো বিচার হবে না?

যেদিন মানুষ তার বিবেককে জাগ্রত করবে সে দিনই এই ঘটনার সমাপ্তি হবে।
“ইনশাআল্লাহ ‘

Join the conversation

1 Comment

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *